বিভাগীয় সংবাদ

ঘুমের ওষুধ খাইয়ে হত্যা; কবর থেকে আইনজীবীর লাশ উত্তোলন

জুমবাংলা ডেস্ক : সিলেটে পরকীয়া প্রেমিককে বিয়ে করতে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে স্বামীকে খুন করেছিলেন স্ত্রী। আদালতে স্ত্রী শিপা বেগম এমন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছেন। স্ত্রীর স্বীকারোক্তির পর বুধবার আদালতের নির্দেশে ময়নাতদন্তের জন্য এডভোকেট আনোয়ার হোসেনের লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের প্রায় দেড় মাস পর বুধবার দুপুরে তার গ্রামের বাড়ি সিলেট সদর উপজেলার শিবেরবাজারস্থ দীঘিরপাড় গ্রামের বাড়ির কবরস্থান থেকে তার লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়।

জানা যায়, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মেজবাহ উদ্দিনের উপস্থিতিতে কবর থেকে লাশ উত্তোলন করা হয়। এরপর অ্যাম্বুলেন্সযোগে লাশ নিয়ে আসা হয় ওসমানী হাসপাতাল মর্গে।

নিহত আনোয়ার হোসেন দুই সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে নগরীর তালতলায় বাস করতেন। গত ৩০ এপ্রিল বিকেল তিনটায় শিপা বেগম স্বজনদের ফোন করে তার স্বামীর মৃত্যুর খবর জানান। শিপা জানান, ডায়াবেটিস শূন্য হয়ে আনোয়ার মারা গেছেন। স্বাভাবিক মৃত্যু ভেবে স্বজনরা গ্রামের বাড়িতে দাফন করা হয়। কিন্তু স্বামীর মৃত্যুর ১০ দিনের মাথায় তিনি কানাইঘাট উপজেলার ঝিঙ্গাবাড়ির উপরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা শাহজাহান চৌধুরী মাহিকে বিয়ে করলে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। পরে আদালতে শিপা বেগম ও শাহাজাহান চৌধুরীসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন আনোয়ার হোসেনের ভাই মনোয়ার হোসেন।

গত ২ জুন পুলিশ শিপা বেগমকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে শিপা বেগম আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরকীয়া প্রেমিক শাহজাহানের সাথে পরিকল্পনা করে ১০টি ঘুমের ওষুধ খাইয়ে স্বামী আনোয়ারকে হত্যার কথা স্বীকার করেন তিনি।

আজকের জনপ্রিয়:>> যেসব ওষুধ সবসময় ঘরে রাখবেন>> সাবধান, যৌন রোগের ভয়ংকর নতুন লক্ষণ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button